চকরিয়ায় সীমানার গাছ কাটার বিরোধ নিয়ে স্কুল শিক্ষার্থী ভাই-বোনসহ আহত- ৪

dailybarta71dailybarta71
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  04:41 PM, 01 December 2019

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের চকরিয়ায় সীমানার গাছ কাটার বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে ধারালো অস্ত্রদিয়ে কুপিয়ে ও বেদড়ক মারধর করে স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থী ভাই-বোনসহ চার ব্যক্তিকে গুরুতর আহত করা হয়েছে। স্থানীরা এগিয়ে এসে ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়। তৎমধ্যে গুরুতর আহত এক নারীকে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেছে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক।

রোববার (১ডিসেম্বর) দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় আহত ব্যক্তিরা হলেন, লক্ষ্যারচর মন্ডলপাড়া এলাকার মৃত জামাল উদ্দিনের ছেলে মোজাহের হোসেন (৪০), তার স্ত্রী লালবানু (৩৫), তাদের স্কুল পড়ুয়া কন্যা ও কৈয়ারবিল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী শাকি (১৫), অষ্টম শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্র মো: রাসেল (১৩)। হামলার এ ঘটনা নিয়ে আহতদের পরিবার থানায় মামলার প্রস্তুতি নিয়েছে বলে সুত্রে জানায়।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া এলাকার মৃত জালাল আহমদের ছেলে মোজাহের আহমদ দীর্ঘকাল ধরে তাদের পৈত্রিক জায়গা ভোগদখল করে আসছিল। রোববার দুপুরের দিকে তার দখলীয় জায়গায় বসতঘরের সীমানার গাছ কাটতে গেলে এ সময় বাঁধা দেন তার ভাই দিলদার হোসেন ও এজাহার হোসেন। গাছ কাটা ও সীমানার বিরোধ নিয়ে দু’পক্ষের লোকজন ঘটনার একপর্যায়ে তর্কবিতর্ক ও কথা কাটাকাটি নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। ঘটনার একপর্যায়ে দিলদার হোসেন ও তার অপর ভাই এজাহার হোসেন এবং তার স্ত্রী সন্তানেরা ক্ষীপ্ত হয়ে মোজাহের উপর অতর্কিত ভাবে হামলা চালিয়ে বেড়দক মারধর করলে এতে বাঁধা দিতে গেলে মোজাহের স্ত্রী লালবানুকেও মারধর করে মাটিতে ফেলে দেয়। ওই সময় তাদের মেয়ে শাকি ও ছেলে রাসেল বাবা মোজাহের ও লালবানুকে উদ্ধার করতে গেলে তাদের চাচা দিলদার হোসেন ও এজাহারের স্ত্রী সন্তানের নেতৃত্বে দেশীয় তৈরি ধারালো অস্ত্রদিয়ে কুপিয়ে ও মারধর করে তাদেরকেও গুরুতর আহত করে জখম করা হয়। এমনকি তারা অশ্লীল গালি-গালাজ করে আহতদের প্রাণনাশের হুমকি প্রদর্শনও করেছে বলে সূত্রে জানায়।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.হাবিবুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঘটনার বিষয়ে থানায় এখনো কেউ অভিযোগ করেনি । অভিযোগ পেলে ঘটনার তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।##

আপনার মতামত লিখুন :