Main Menu

চকরিয়ায় স্বর্ণালংকার ও টাকা নিয়ে উধাও প্রবাসীর  স্ত্রী 

পেকুয়া প্রতিনিধি

 

চকরিয়ায় নগদ ৪ লাখ  টাকা ও ৫ ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে ১ মাস পূর্বে পালিয়ে যায় প্রবাসীর স্ত্রী। গত ১৬ অক্টোবর চকরিয়া উপজেলার হারবাং ইউনিয়নে এ ঘটনাটি ঘটে।নিখোঁজ গৃহবধূর নাম ফারজানা ইয়াসমিন নিশান (২৫)।সে কোনাখালী ইউনিয়নের পুরুত্যাখালী গ্রামের মৃত বাদশা মিয়ার ছেলে প্রবাসী মোহাম্মদ বাচ্চুর স্ত্রী।

 

স্বামীর পরিবার ও স্বজনরা জানায়, ওমান প্রবাসীর ওই স্ত্রী একজনের সাথে অনৈতিক সম্পর্কে লিপ্ত ছিলো। তাদের ও ধারনা প্রেমিককে নিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমায়।চলতি বছরের ১৬ অক্টোবর প্রবাসীর স্ত্রী স্বামীর অর্জিত টাকা ও স্বর্ণ নিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয় সুত্র জানায়,গত ৩ বছর পূর্বে ওমান প্রবাসী  মোহাম্মদ বাচ্চু ও  ফারজানা ইয়াসমিন নিশানের বিবাহ হয়েছে। বাচ্চু চকরিয়া উপজেলার কোনাখলী ইউনিয়নে পুরুত্যাখালী গ্রামের মৃত বাদশা মিয়ার ছেলে। ৮ লক্ষ টাকা মোহরানায় প্রবাসী বাচ্চু একই উপজেলার হারবাং ইউনিয়নে মোঃ বারেকের মেয়ে ফারজানা ইয়াসমিন নিশানকে জীবন সঙ্গিনী করেন।বিবাহের ৮ মাসের ব্যবধানে স্বামী ওমানে পাঁড়ি দেয়। তবে স্ত্রীর বরণ পোষনসহ নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করতেন স্বামী। বিবাহের পর থেকে স্ত্রীর জন্য নিয়মিত বিদেশ থেকে টাকা ও স্বর্ণালংকার পাঠাতেন। নিশানের স্বজনরা জানায়, স্বামীর অজান্তে নিশান অন্য ছেলের সঙ্গে সম্পর্কে লিপ্ত ছিলেন। এর সুত্র ধরে ওই দিন রাতে পিতার বাড়ি থেকে নিশান উধাও হন । সর্বশেষ স্বামী তার জন্য টাকাও পাঠিয়েছেন। বিদেশ থেকে  প্রেরিত অর্থ পেয়ে মাত্র ২ দিনের ব্যবধানে  বাচ্চুর স্ত্রী স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। শ্বশুরের সাথে এ বিষয়ে যোগাযোগ করেন। তবে নিশানের পিতা মেয়ের জামাই কে সঠিক জবাব দিতে পারেননি।আকার ইঙ্গিতে জামাতাকে বলেছেন  নিশান অন্য ছেলের হাত ধরে উধাও হয়েছে। মুঠোফোনে বিদেশ থেকে নিশানের স্বামী মোহাম্মদ বাচ্চু এ প্রতিবেদককে জানায় আমি চরমভাবে হতশায়। আমি মনের মানুষটিকে হারিয়ে বাঁচতে পারিনা।ছেলে সন্তান হয়নি।আমি স্ত্রীকে পেতে চাই। টাকা ও স্বর্ণালংকার ফেরত চাই না।মনের মানুষটিকে নিয়ে ভবিষ্যত জীবন শেষ করতে চাই অপরাধ করলেও ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবো।এরপরও আমার স্ত্রীকে আমি সংসারে ফেরাতে চাই।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*