• শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ১০:৪৪ অপরাহ্ন
Headline
১০ হাজার টাকায় নিজের সন্তান বিক্রি করল মা! চকরিয়ায় ট্রাক চাপায় কিশোরের মৃত্যু চকরিয়া প্রবাসী ইউনিয়নের ইফতার সামগ্রী বিতরণে এমপি,উপজেলা চেয়ারম্যান ও মেয়র শ্রমিকরা এদেশের অর্থনীতিকে শক্তিশালী করছে – প্রতিমন্ত্রী পলক ছাতকে সরকারি চাল কালো বাজারে বিক্রয়ের সময় পিকআপসহ আটক প্রবীণ শিক্ষক মাষ্টার রফিক আহমদ আর নেই চকরিয়ার রাজধানী পাড়ায় সন্ত্রাসী কায়দায় জমি জবর দখলে রাখার চেষ্টার অভিযোগ জেলা আওয়ামীলীগ নেতার মৎস্য ঘেরে হামলা-লুটপাট, গুলিবর্ষণ ম্যানেজার অপহৃত, নগদ টাকা ও মাছ লুট “চকরিয়া প্রবাসী ইউনিয়ন” উপজেলা ব্যাপী ইফতার সামগ্রী বিতরণ ১মে লক্ষ্যারচর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল সম্পন্নঃ

চকরিয়ায় যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে পাহাড়ি উচু টিলা কেটে মাটি বিক্রি

Reporter Name / ৫৬৮ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২১

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধিঃ
কক্সবাজারের চকরিয়ায় বনবিভাগের পাহাড়ি উঁচু টিলাভূমি ধ্বংস করে রেলপথসহ বিভিন্ন প্রকল্পে মাটির যোগান দিচ্ছেন পাহাড় খেকো হাসানুল ইসলাম আদর নামের এক যুবলীগ নেতা।
কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের রিজার্ভ বনভূমির অন্তত ২০টি ছোট-বড় পাহাড় স্কেভেটর দিয়ে মাঠি কেটে সাবাড় করে বিরাণ ভূমিতে পরিণত করেছে আদর। দিনদুপুরে এসব পাহাড়ি মাটি কেটে নিলেও বন বিভাগ, পরিবেশ অধিদপ্তর এবং স্থানীয় প্রশাসন রহস্যজনক কারণে অনেকটাই নিরব। এই অবস্থায় উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ভয়াবহ পরিবেশ বিপর্যয় এবং বর্ষায় ব্যাপক পাহাড় ধসেরও আশঙ্কা করছে সচেতন মহল।
সরজমিনে দেখা যায়, চকরিয়া উপজেলার কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের আওতাধীন ফুলছড়ি রেঞ্জের খুটাখালী, ফাঁশিয়াখালী রেঞ্জের ডুলাহাজারা, সুরাজপুর-মানিকপুর ও কৈয়ারবিল ইউনিয়নের নলবিলা বিটের উঁচু পাহাড়ি বনভূমিগুলোর মাটি কেটে পুকুরে পরিণত করা হচ্ছে।
উপজেলার বরইতলী শান্তিবাজার-কৈয়ারবিল-ছিকলঘাট-কাকারা-ইয়াংছা সড়কের নির্মান কাজে মাটি সরবরাহ করছেন আদর। ওই সড়কে রাতদিন অন্তত ২০-২৫টি ডাম্পার ট্রাক প্রশাসনের চোখের সামনে মাটি সরবরাহ করছে। এসব মাটি সরবরাহের কারণে বিভিন্ন গ্রামীন সড়ক ভেঙ্গে চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।
ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলার অন্তত ১২টি স্পটে বন বিভাগের রিজার্ভ পাহাড়ি বনভূমি কেটে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আনলোড করতে সক্ষম এমন ১৫টি বড় ট্রাক প্রতিদিন ওই মাটি নিয়ে যাচ্ছে। এসব মাটি দোহাজারী-কক্সবাজার রেল লাইন নির্মাণ কাজে নিয়োজিত তমা কনস্ট্রাকশনকে বিক্রি করা হচ্ছে।
ডুলাহাজারা এলাকায় বগাচতর এলাকায় জেলা প্রশাসন থেকে বালু মহাল ইজারা নিয়ে বালির পাশাপাশি পাহাড় কেটে মাটিও বিক্রি করছে ইজারাদার আদরের লোকজন।
বগাচতর এলাকার লোকজন জানায়, বালু মহাল ইজারা নিলেও ইজারাদারের লোকজন মাটিকে বালি দেখিয়ে রিজার্ভ বনভূমির মাটি কেটে রেললাইন রাস্তা নির্মানের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। প্রতি ট্রাক বালি বিক্রি হচ্ছে ১০০০-১১০০ টাকা, মাটি বিক্রি হচ্ছে ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা। এদিকে ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী পার্ক সীমানা প্রাচীর সংলগ্ন রংমহল এলাকায় পার্ক ঘেষে পাহাড়ী বনভূমি কেটে মাটি বিক্রি করছে ওই যুবলীগ নেতা। এতে সাফারী পার্র্কের সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে পড়ার উপক্রম হয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, খুটাখালী ইউনিয়নের খোদার ফাঁড়ি ও মেধাকচ্ছপিয়ায় ৫-৬টি পাহাড় স্কাভেটর দিয়ে মাটির সাথে মিশিয়ে দিয়েছে। ডুলাহাজারা ইউনিয়নের বাকগোলা বাগান, রংমহল ও মালুমঘাট এলাকা থেকে প্রতিদিন ২০-২৫টি ডাম্পার ট্রাক দিয়ে মাটি অনত্রে নিয়ে যাচ্ছে। কক্সবাজারের বিভিন্ন উপজেলায় আবাসিক ভবনের জন্য প্লট ভরাট, সরকারি-বেসরকারি উন্নয়ন প্রকল্পের নিচু জমি ভরাটের কাজে পাহাড় কাটার মাটি ব্যবহার হচ্ছে বলে একাধিক ব্যক্তি জানান।
স্থানীয়দের অভিযোগ, ডুলাহাজারা ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা হাসানুল ইসলাম আদরের নেতৃত্বে ৪-৫জন সিন্ডিকেট পাহাড় কেটে সাবাড় করছেন। কিন্তু রাতের বেলায় পাহাড় কাটায় বন বিভাগ কিছুই করতে পারছে না।
যুবলীগ নেতা হাসানুল ইসলাম আদর বলেন, বালু মহাল ইজারা নিয়ে আমি বালুর ব্যবসা করছি। পাহাড় কাটার সাথে আমি জড়িত নই।
কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের ফুলছড়ির এসিএফ মাসুদ রানা বলেন, ইতিমধ্যে যারা পাহাড় কাটার সাথে সম্পৃক্ত তাদের বিরুদ্ধে মামলার বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন পাঠানো হয়েছে। অনুমতি মিললে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হবে।
পরিবেশ অধিদপ্তর কক্সবাজার জেলার সহকারী পরিচালক নাজমুল হুদা বলেন, পাহাড় কাটার বিষয়ে আমাদের কাছে তথ্য নেই। খবর নিয়ে পাহাড় কাটার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

#

আবুল মনসুর মোঃ মহসিন,
চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি,
০১৮৬০-৬৪৬৪৬৮.
তারিখঃ ২৭.০৪.২০২১.


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category