• বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৭:৩১ অপরাহ্ন
Headline
পৈতৃক সম্পত্তি অবৈধভাবে জবরদখল; বাঁধা দেওয়ায় আপন ভাইকে মেরে গুরুতর জখম রাজনীতির ক্যারিয়ার ধ্বংস করতে স্বামীকে ফাঁসানো হয়েছে; চকরিয়ায় সংবাদ সম্মেলনে স্ত্রীর দাবী কুতুবদিয়া আজম কলোনীর পানির সমস্যা খুব দ্রুত সমাধান হবে- এমপি আশেক উল্লাহ রফিক চকরিয়া বদরখালীতে গণসংবর্ধনায়— কারামুক্ত হেফাজ সিকদার পরাজিত প্রার্থীদের ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচার বন্ধে সাংবাদিকদের সহায়তা চাইলেন ইউপি চেয়ারম্যান নবী চৌধূরী রেমিট্যান্স যোদ্ধা;যথাযথ মর্যাদা এবং নিশ্চিত সুরক্ষা জনগণের জানমালের নিরাপত্তা দেওয়া পুলিশের প্রধান কাজ- হাসানুজ্জামান পিপিএম প্রচারিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান নবী হোছাইন চকরিয়ায় ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে সংঘটিত ভুল বুঝাবুঝির অবসান বিএমচরের চেয়ারম্যান ও ছাত্রলীগের সা.সম্পাদকের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবি

চকরিয়ায় পুর্ব শত্রুতার জেরে হামলা; অন্তঃসত্ত্বাসহ আহত -৩

চকরিয়া প্রতিনিধি / ১৭৪ Time View
Update : রবিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২১

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধিঃ
কক্সবাজারের চকরিয়ায় সীমানা বিরোধের জেরে হামলায় অন্তঃসত্ত্বা মহিলাসহ ৩জন গুরুত্বর আহত হয়েছে। ১৩ অক্টোবর (বুধবার) ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ছাইরাখালীতে ঘটনাটি ঘটেছে।
এ ঘটনায় সরোয়ার আলম বাদী হয়ে ছাইরাখালী গ্রামের আমির হোসেনের পুত্র দেলোয়ার হোসেন (৬০), আমান উল্লাহর পুত্র নুরুল আবছার (২০), নুরুল হকের পুত্র ইব্রাহীম খলিল (৪০) সহ ১০জনকে আসামি করে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত চকরিয়ায় সিআর ১২০০/২০২১ মামলা দায়ের করেন।
আহতরা হলেনঃ মো সরোয়ারের স্ত্রী আয়েশা ছিদ্দিকা (৩০), মৃত আমির হোসেনের পুত্র ফজলুল হক (৭৫), ফজলুল হকের পুত্র মনির উদ্দিন (২৮)।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, বাদী মোঃ সরোয়ার আলমের পরিবারকে বসতবাড়ি থেকে উচ্ছেদ করার জন্য স্থানীয় কিছু চিহ্নিত সন্ত্রাসী বিভিন্ন সময়ে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছিল, তারই ধারাবাহিকতায় ঘটনারদিন স্থানীয় আমির হোসেনের পুত্র দেলোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী সরোয়ার আলমের পিতা বৃদ্ধ ফজলুল হক ও ভাই মনির উদ্দিন কে মারধর করে গুরুতর আহত করে।
বাদী অভিযোগ করে বলেন- আমার
বৃদ্ধ পিতা ও ভাইয়ের শোর চিৎকারে আমার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী উদ্ধারের চেষ্টায় এগিয়ে এলে তাকেও মারধর করে গুরুতর আহত করে।
মারধরের আঘাতে অন্তঃসত্ত্বা
স্ত্রীর রক্তক্ষরণ হলে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিই। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে আজিজনগর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করি। ২২অক্টোবর সন্ধ্যায় পরীক্ষা নীরিক্ষার পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক পেঠের সন্তান মারা গেছে বললে, সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে শিশুটিকে বের করা আনা হয়।
স্থানীয় দেলোয়ার হোসেনের স্ত্রী শাহিনা বেগম জানান, মারামারির ঘটনা হয়েছে বাজারে, সেখানে কোন মহিলার উপর হামলা হয়নি।
স্থানীয় মোস্তাক আহমদের স্ত্রী খালেদা বেগম বলেন, মারামারির ঘটনায় বাচ্চা নষ্ট হয়নি। অন্য কোন কারণে পেটের বাচ্চা নষ্ট হতে পারে, এটি তদন্ত করলে আসল রহস্য বেরিয়ে আসবে।
এদিকে এ ঘটনায় আইনী সহায়তা কামনা করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category