• শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ১২:১১ পূর্বাহ্ন
Headline
চকরিয়ায় নলবিলা বন বিটের বাগান থেকে নিজের বাগান দাবি করে বিপুল গাছ কর্তন শীতার্ত ছিন্নমূল মানুষ এবং অবহেলিত কক্সবাজারের দরিদ্র জনগণ —– সাংবাদিককে অস্ত্র দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন শাহীন সরওয়ার! ডুলাহাজারায় ইউপি মেম্বারের নেতৃত্বে পরিষদে হামলা, ইউপি সচিব, গ্রামপুলিশসহ আহত ৫ চকরিয়ায় দিনদুপুরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা, লুটপাট, আহত-২ চকরিয়া প্রবাসী কল্যাণ একতা সমবায় সমিতির প্রথম বর্ষপূর্তি চকরিয়া ফাসিয়াখালীতে ডাকাতির প্রস্তুতি কালে ৩ জন আটক চকরিয়া বদরখালীতে কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্পের স্টাফ কোয়ার্টারে হামলা, মালামাল লুট ঢেমুশিয়া জিন্নাত আলী চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন বনবিভাগের ৫ একর সংরক্ষিত বনভূমি জবরদখল মুক্ত

চকরিয়া বদরখালীতে নিহত মিন্টুর জানাজা সম্পন্ন

নির্বাহী সম্পাদক / ১৭১ Time View
Update : সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১


চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি,
 কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নে গিয়াস উদ্দিন মিন্টুর নামাজে জানাজা সম্পন্ন। মিন্টুর মৃত্যু নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে। পরিবারের দাবি রবিবার রাত সাড়ে ১১ টায় বদরখালী গাউছিয়া মসজিদ ও হেফজখানা এলাকায় নির্বাচন পরবর্তী দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় তার মৃত্যু হয়েছে। সোমবার বাদে আছর বদরখালী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ মাঠে নামাজে জানাজা পড়ে পারিবারিক কবরস্থান দাফন করা হয়েছে।

নিহত গিয়াস উদ্দিন মিন্টু (৪৫) ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড ঢেমুশিয়া পাড়ার মাষ্টার আবুল মকছুদের পুত্র। 

বদরখালী ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান নুরে হোছাইন আরিফ মৃত মিন্টুকে ভাগ্নে ও নৌকার সমর্থক পরিচয় দিয়ে, পরাজিত প্রার্থী হেফাজ সিকদারের সমর্থকদের হামলায় নিহত হয়েছে বলে দাবি করেন।

জানা যায়, ২৮ নভেম্বর নির্বাচন পরবর্তী রাত সাড়ে দশটার দিকে ফলাফলে এগিয়ে থাকা নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরে হোছাইন আরিফের সমর্থকেরা বদরখালী বাজারে বিজয় মিছল করে বদরখালী সমবায় সমিতির কার্যালয়ে অবস্থান করেন। ওই সময় প্রতিদ্বন্দ্বী চশমা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ হেফাজ সিকদারের সমর্থকেরা সমিতির কার্যালয়ে ইটপাটকেল ছুঁড়ে। পরে আরিফের সমর্থকেরাও পাল্টা ইটপাটকেল ছুঁড়ে। এ ঘটনায় পুরো এলাকা জুড়ে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হেফাজ সিকদার ঘটনা স্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। তিনি নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আরিফের সাথে কুশল বিনিময় করে সমিতির অফিসে অবস্থান নেন। এসময় হেফাজ সিকদার কে চেয়ারম্যান আরিফ আটক করেছে বলে গুজব ছড়িয়ে পড়ে এবং সমর্থকেরা বিরোধে জড়িয়ে পড়ে উভয় পক্ষের কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করেছে বলে জানাযায়। পরবর্তীতে হেফাজ সিকদার ওই স্থান ত্যাগ করিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়ে যায়।

হেফাজ সিকদার জানান, বাজার থেকে রাত সাড়ে দশটার সময় তিনি কর্মী সমর্থকদের নিয়ে বাড়িতে চলে যান এবং রাতে আর কোন ধরনের মারামারির ঘটনা ঘটেনি। মিন্টুকে কে বা কারা হত্যা করেছে জনেননা উল্লেখ করে তদন্ত করলে আসল রহস্য বেরিয়ে আসবে বলেও তিনি দাবি করেন।

রাত এগারোটার সময় ২নং ওয়ার্ড কুতুব নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রধান ফটক দুই মেম্বার পদপ্রার্থীর সমর্থকেরা বন্ধ করে দেয়। খবর পেয়ে র‍্যাব, বিজিবি সহ বিপুল পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে উশৃংখল জনতাকে লাঠিপেটা করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। কুতুব নগর কেন্দ্রের ইনচার্জ এস আই হাসান মাহমুদ জানান, রাত সাড়ে ৯টার সময় দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকেরা কেন্দ্রের বাইরে অবস্থান নিয়ে গতিরোধ করলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এসে তাদের সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং এখানে দুই গ্রুপের ভিতর দাওয়া পাল্টা ধাওয়া হলেও নিহতের মতো কোন ঘটনা ঘটেনি।চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ ওসমান গণি বলেন, রবিবার রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ফোন করে মিন্টুর মৃত্যুর খবর জানালে, দ্রুত পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে, ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করি এবং মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন পূর্বক জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category