• বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৯:৪৪ পূর্বাহ্ন
Headline
জাতিসংঘের “গ্লোবাল ক্রাইসিস রেসপন্স গ্রুপ” এর সদস্য মনোনীত হলেন শেখ হাসিনা বয়স্কদের অবহেলা নয়, তাঁরা অভিজ্ঞ পথপ্রদর্শক চকরিয়ায় পার্শ্ববর্তী ভবনের দেয়াল চাপায় মেশিনারিজ দোকানের ব্যাপক ক্ষতি, আহত-৪ পৈতৃক সম্পত্তি অবৈধভাবে জবরদখল; বাঁধা দেওয়ায় আপন ভাইকে মেরে গুরুতর জখম রাজনীতির ক্যারিয়ার ধ্বংস করতে স্বামীকে ফাঁসানো হয়েছে; চকরিয়ায় সংবাদ সম্মেলনে স্ত্রীর দাবী কুতুবদিয়া আজম কলোনীর পানির সমস্যা খুব দ্রুত সমাধান হবে- এমপি আশেক উল্লাহ রফিক চকরিয়া বদরখালীতে গণসংবর্ধনায়— কারামুক্ত হেফাজ সিকদার পরাজিত প্রার্থীদের ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচার বন্ধে সাংবাদিকদের সহায়তা চাইলেন ইউপি চেয়ারম্যান নবী চৌধূরী রেমিট্যান্স যোদ্ধা;যথাযথ মর্যাদা এবং নিশ্চিত সুরক্ষা জনগণের জানমালের নিরাপত্তা দেওয়া পুলিশের প্রধান কাজ- হাসানুজ্জামান পিপিএম

চকরিয়ায় চলাচলের পথে ভবন নির্মাণ; বাঁধা দেওয়ায় মারধর আহত-২

নির্বাহী সম্পাদক / ২৯১ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

নিজস্ব প্রতিনিধি, চকরিয়াঃ

কক্সবাজারের চকরিয়া পৌরশহরের ৮ নং ওয়ার্ড বাঁশঘাটা রোড়ে শত বর্যীয় চলাচলের পথ দখল করে ভবন নির্মাণ ও বাঁধা দেওয়ায় ২ জনকে পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালী আব্দু শুক্কুরের বিরুদ্ধে।

৩ ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যা ৭ টার দিকে পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ড মাষ্টার পাড়া বাঁশঘাট রোড়স্থ বাদীনির বসতভিটার চলাচলের রাস্তার উপরে ঘটনাটি ঘটে।
এ ঘটনায় মোঃ ইছহাকের স্ত্রী কুলছুমা বেগম বাদী হয়ে স্থানীয় মৃত মোজাহের আহমদের পূত্র আব্দু শুক্কুর ও তার ছেলেদের আসামী করে চকরিয়া থানায় একটি লিখিত এজাহার দায়ের করেন।
এজাহারে বাদী উল্লেখ করেন, তাদের চলাচলের রাস্তার উপর আসামীরা পাকা ভবন নির্মাণ শুরু করলে তা দেখে বাঁধা দিতে গেলে আসামীগণ একত্রিত হয়ে দেশীয় অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাদীর বসতভিটায় অনুপ্রবেশ করে তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের বেদম পেটাতে থাকে। এ সময় দখলদারের হামলায় কুলছুমা বেগম ও তানিয়া সোলতানাকে বিবস্ত্র করে শ্লীলতাহানি করে এবং লোহার রড় দিয়ে পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করে। স্থানীয় লোকজন আগাইয়া আসলে আসামীরা তানিয়ার গলায় থাকা ৩২ হাজার টাকা মূল্যের ৮ আনা ওজনের সোনার চেইন নিয়ে পালিয়ে যায়। লোকজনের সহায়তায় গুরুত্বর আহত কুলছুমা বেগমকে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জখমের অবস্থা গুরুতর দেখে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করেন।
আসামীরা অর্থশালী হওয়ায় বাদী ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জানিয়েছেন। তাই বাদী পরিবার ঘটনার সুষ্ঠু সামাধানে কতৃপক্ষের সু দৃষ্টি কামনা করেন।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ ওসমান গনি জানান, কুলছুমা বেগমের লিখিত একটি এজাহার পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category